কত রাকাত নামাজ আদায় করেছেন সেটা ভুলে গেলে করণীয় কী?

আমরা দৈনিক পাঁচ বার নামাজ পড়ি। অনেক সময় বিভিন্ন চিন্তার কারণে আমরা ভুলে যাই আসলে কত রাকাত নামাজ আদায় করেছি। এটা বেশির ভাগ হয়ে থাকে যখন চার রাকাত নামাজ পড়া হয়। এটা সুন্নাতের ক্ষেত্রেও হতে পারে আবার ফরজের ক্ষেত্রেও হয়। প্রথম কথা হলো আমাদের নামাজের ক্ষেত্রে বেশির থেকে বেশি মনোযোগী হওয়া প্রয়োজন যাতে করে নামাজে কোনো ভুল না হয়। কিন্তু যদি ভুল হয় তাহলে করণীয়টা কী?

নামাজের এই ভুলটা সাধারণত যেহেতু চার রাকাত নামাজের ক্ষেত্রে হয় তাই সব সময় মনে রাখতে হবে যে, কয় রাকাত হয়েছে এর উপর বেশি মন শায় দেবে সেই কয় রাকাত হয়েছে হিসেবে ধরে নিতে হবে এবং নামাজ শেষে করার আগে সাহু সিজদা দিতে হবে।
হজরত আবু সাঈদ (রা.) থেকে বর্ণিত, রাসূলুল্লাহ (সা.) বলেছেন, তোমাদের মধ্যে কেউ যদি তার নামাজে সন্দেহে পড়ে। অর্থাৎ সে মনে করতে পারে না যে আসলে সে কয় রাকাত নামাজ আদায় করেছেন। তাহলে সে কম রাকাত আদায় হয়েছে ধরে নিবে এবং নামাজ শেষে করার আগে অবশ্যই সাহু সিজদা আদায় করবে। (মুসলিম)
ইসলামী আইনশাস্ত্রের বিধান হলো- যদি আপনি নিশ্চিত থাকেন যে আপনি অন্তত দুটি রাকাত নামাজ আদায় করেছেন। কিন্তু আপনি তৃতীয় ও চতুর্থ চক্রের মধ্যে কোনো রাকাত নামাজ আদায় করছেন সেই বিষয়ে নিশ্চিত নন। তাহলে নিশ্চয়তা ভিত্তিতে অগ্রাধিকার দেন। অথবা তৃতীয় রাকাত পড়ছেন বলে ধরে নেন। আর যথারীতি নামাজ শেষ করার আগে সাহু সিজদা আদায় করুন।
হজরত আবু হুরায়রা (রা.) থেকে বর্ণিত, রাসূলুল্লাহ (সা.) বলেছেন, তোমাদের মধ্যে কেউ যখন নামাজ আদায় করার জন্য দাঁড়ায়, তখন যদি আপনি নামাজে ভুল করেন তাহলে বুঝতে হবে যে শয়তান আপনার আশেপাশে কোথাও আছে। (আল বুখারী)
আমরা যেহেতু নামাজে ভুল করি সেহেতু সংশোধন করার পদ্ধতি আমাদের অবশ্যই জেনে রাখা প্রয়োজন। যদি চার রাকাত নামাজের তৃতীয় রাকাতকে চতুর্থ রাকাত হিসেবে ধরে বসে পড়েন এবং নামাজ শেষ হওয়ার আগেই বুঝতে পারেন যে আপনি ভুল করছেন তাহলে অবশ্যই আপনাকে আবার দাঁড়িয়ে যেতে হবে। আর এটা না হয়ে অন্য ছোট কোনো ভুল হলে অবশ্যই সাহু সিজদা আদায় করতে হবে।
যাহোক আমরা আমাদের সকল ভুলের জন্য আল্লাহর কাছে ক্ষমা চিইবো। কেননা তিনিই আমাদেরকে ক্ষমা করবেন। এবং তিনিই আমাদেরকে সঠিক পথ দেখাবেন। সকল প্রকার সাফল্য আল্লাহর কাছ থেকে আসে, আর আল্লাহই সর্ব জ্ঞানী।

Leave a Reply