ঢাকার উইলস লিটলে ছাত্রলীগের কমিটি

কিছুদিন আগেই দেশের সব স্কুলে কমিটি গঠন করার সিদ্ধান্ত নেয় ক্ষমতাসীন আওয়ামী লীগের সহযোগী সংগঠন বাংলাদেশ ছাত্রলীগ। ওই সিদ্ধান্তের ধারাবাহিকতায় ঢাকার উইলস লিটল ফ্লাওয়ার স্কুল শাখায় ১৭ সদস্য বিশিষ্ট একটি কমিটির অনুমোদন দিয়েছে ছাত্রলীগ। বৃহস্পতিবার (৩০ নভেম্বর) ঢাকা মহানগর দক্ষিণের রমনা থানা ছাত্রলীগের সভাপতি মো. এনামুল হক ও সাধারণ সম্পাদক মিজানুর রহমান মিজান স্বাক্ষরিত এক নোটিশে এই কমিটি ঘোষণা করা হয়।

উইলস লিটল ফ্লাওয়ার স্কুলের ১০ শ্রেণির ছাত্র মিরাজুল ইসলাম হিমেলকে সভাপতি ও নবম শ্রেণির ছাত্র মাহিব জদ্দারকে সাধারণ সম্পাদক করে স্কুলটির ছাত্রলীগের এই কমিটি গঠন করা হয়।
কমিটিতে সহ-সভাপতি পদে রয়েছেন, রাফি সরকার (১০ম), আল মিম শ্রাবণ (১০ম), সজীব খান জয় (১০ম), ফাহিদ ফাদনান ইমন (১০ম), তন্ময় আহমেদ মিশুক (১০ম) ও তানভীর আহমেদ (১০ম)। যুগ্ম সাধারণ সম্পাদক হয়েছেন- আশিকুল ইসলাম প্রান্ত (৮ম), আবিদ মল্লিক (১০ম), সৃন জুনায়েদ (১০ম)।
সাংগঠনিক সম্পাদক করা হয়েছে- নবম শ্রেণির মোহাম্মদ শোয়েব, মুন্তারিফ রহমান রাফি (১০ম) ও আশরাফ ফরাজিকে (১০ম)। দপ্তর সম্পাদক হয়েছেন ৮ম শ্রেণির তাজোয়ার অর্ক, প্রচার সম্পাদক করা হয়েছে দশম শ্রেণির সাদমান সাদিককে। আর ক্রীড়া সম্পাদক হয়েছেন সপ্তম শ্রেণির তাহমীদুর রহমান সানজিদ।

গত ২১ নভেম্বর ছাত্রলীগ সভাপতি সাইফুর রহমান সোহাগ এবং সাধারণ সম্পাদক এস এম জাকির হোসাইন স্বাক্ষরিত এক নোটিশে জানানো হয়, দেশের সব স্কুলে কমিটি গঠন করতে যাচ্ছে ক্ষমতাসীন আওয়ামী লীগের সহযোগী সংগঠন ছাত্রলীগ। সংগঠনটির স্কুল-ছাত্র বিষয়ক সম্পাদক মো. জয়নাল আবেদীন বিষয়টির সার্বিক তত্ত্বাবধানে রয়েছেন।
এতে বলা হয়, ‘বাংলাদেশ ছাত্রলীগ কেন্দ্রীয় নির্বাহী সংসদের এক জরুরি সিদ্ধান্ত মোতাবেদক জানানো যাচ্ছে যে, স্বাধীনতার মহান স্থপতি জাতির পিতা বঙ্গবন্ধু শেখ মুজিবুর রহমানের আদর্শকে মাধ্যমিক পর্যায়ের ছাত্র-ছাত্রীদের মাঝে পৌঁছে দেয়ার লক্ষ্যে এবং বাংলাদেশ ছাত্রলীগকে আরও গতিশীল ও বেগবান করার লক্ষ্যে সকল সাংগঠনিক ইউনিটের অন্তর্গত মাধ্যমিক স্কুলে ছাত্রলীগের স্কুল কমিটি গঠন করার নির্দেশ প্রদান করা হলো।’
রাজনীতিতে স্কুলের ছাত্রদের অন্তর্ভূক্তি প্রসঙ্গে বাংলাদেশ ছাত্রলীগের কেন্দ্রীয় কমিটির সভাপতি সাইফুর রহমান সোহাগ টেলিফোনে পরিবর্তন ডটকমকে বলেন, স্কুলে কমিটি করা মানেই প্রকৃত অর্থে রাজনীতি না। মানুষ মনে করছে যে স্কুলে কমিটি করা হয়েছে মানে তাদেরকে মিছিল মিটিং করতে হবে।’

‘আমরা সেই লক্ষ্যে স্কুল কমিটি করিনি। আমরা আশা করি না তারা মিছিল ও মিটিংয়ে আসবে। এখন যেভাবে দেশে জঙ্গিবাদের উত্থান হয়েছে, যুব সমাজ মাদকে ঝুঁকছে সেই অবস্থা থেকে শিশুদের একটু সচেতন ও ব্যস্ত রাখার জন্য কমিটি দিয়েছি,’ ব্যাখ্যা দেন ছাত্রলীগের শীর্ষ এই নেতা।
কমিটির ব্যাখ্যায় তিনি আরো বলেন, ‘কমিটির নেতারা বড় ভাইদের সঙ্গে একটু যোগাযোগ রাখবে। মাদকে ঝুঁকবে না। কেউ তাদের ব্রেন ওয়াশ করতে পারবে না। ভবিষ্যতে কেউ তাদেরকে অন্য রাজনৈতিক ধারায় নিতে পারবে না- কমিটি করার এটাই মূল উদ্দেশ্য।’

Leave a Reply