মাস্ক পরে মাঠে লঙ্কান ক্রিকেটাররা, অসুস্থ হয়ে ড্রেসিংরুমে দুজন!

ঘন ধোঁয়াশায় ঢেকে রয়েছে ভারতের রাজধানী দিল্লির রাস্তাঘাট। বিশ্ব স্বাস্থ্য সংস্থা বায়ু দূষণের যে মাত্রাকে গ্রহণযোগ্য নিরাপদ সীমা বলে মনে করে, দিল্লির অনেক এলাকায় বায়ু দূষণ এখন তার চেয়ে ত্রিশ গুণ বেশি। এ কারণে দিল্লিতে ‘জনস্বাস্থ্য জরুরি অবস্থা’ জারি করা হয়েছে। বায়ু দূষণের ভয়াবহ মাত্রা বৃদ্ধির কারণে সেখানকার সব স্কুলও দেড় মাস ধরে বন্ধ।
এমন অবস্থাতেই দিল্লির ফিরোজ শাহ কোটলা স্টেডিয়ামে চলছে ভারত ও শ্রীলঙ্কার মধ্যকার তৃতীয় ও শেষ টেস্ট। বায়ূ দূষণের ভয়াবহ অবস্থায় মাঠে মাস্ক পরেই খেলতে নেমেছেন শ্রীলঙ্কার ক্রিকেটাররা। বায়ূদূষণের কারণে নিঃশ্বাস নিতে কষ্ট হচ্ছিল লঙ্কানদের। পরবর্তীতে অসুস্থ হয়ে দু’জন ক্রিকেটার মাঠও ছাড়েন। এরা হলেন- লঙ্কান পেসার সুরঙ্গ লাকমল ও লাহিরু গামাগে।

ঘটনার শুরু পেসার গামাগেকে ঘিরে। হঠাৎ করে বেদম কাশি শুরু হয় লঙ্কান এই পেসারের। এ সময় ১৬ মিনিট বন্ধ থাকে খেলা। এরপর লঙ্কান অধিনায়ক দীনেশ চান্দিমাল, লাকমল, লোকেশ সাদাকানরা মাস্ক পরে নেন। এ সময় ধারাভাষ্যকার সঞ্জয় মাঞ্জরেকার ও রাসেল আর্নল্ড বলছিলেন, এভাবে মাস্ক পরে খেলাটা খুব কঠিন। খেলা শুরু হলে প্রথম বলেই ফেরেন রবিচন্দ্রন অশ্বিন। কিছুক্ষণের মধ্যে ফেরেন ২৪৩ রান করা বিরাট কোহলিও।
এরপর লাকমলের সমস্যা দেখা দিলে তিনিও মাঠ ছেড়ে যান। এ সময় আবারও বন্ধ হয়ে যায় খেলা। চান্দিমাল ও অ্যাঞ্জেলো ম্যাথুস আলোচনা শুরু করেন আম্পায়ারদের সঙ্গে। লঙ্কান টিম ম্যানেজার আশঙ্কা গুরুসিনহা ও ভারতীয় কোচ রবি শাস্ত্রীও যোগ দেন এ সময়। এরপর আবার খেলা শুরু হলে মাত্র সাত বল স্থায়ী হয় ভারতীয় ইনিংস।
সানদাকানের ওভারের পর লঙ্কান অধিনায়ক আম্পায়ারকে খেলোয়াড় স্বল্পতার কথা জানান। ওই সময় মাঠে ১০ জন শ্রীলঙ্কান খেলোয়াড় ছিলেন। কিছুটা বিরক্ত হয়েই এ সময় ইনিংস ঘোষণা করে দেন ভারতীয় অধিনায়ক। স্কোরবোর্ডে তখন ভারতের সংগ্রহ সাত উইকেটে ৫৩৬ রান।

Leave a Reply